ব্লগিং কি ? ব্লগার কারা ? ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়?

ব্লগিং কি ? ব্লগার কারা ? ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়?

আমরা যারা নিয়মিত ইন্টারনেট ব্রাইজ করি তাঁরা কোথাও না কোথাও একবার ব্লগিং বা ব্লগার নামটি শুনেছি, কিন্তু আসলে এই ব্লগিং বা ব্লগার জিনিসটা কি? এই প্রশ্নটা নিশ্চিয় একবার মাথায় এসেছে?ব্লগিং কি আর ব্লগার কারা এটা বুঝি আর না বুঝি, কিন্তু আমরা বেশির ভাগ মানুষই ইন্টারনেটের কোথাও না কোথাও একবার হলেও কোন ব্লগারের ব্লগ পড়েছি, ব্লগিং সম্পর্কে সচ্ছ ধারণা না থাকায় ব্যপারটি বুঝতে পারিনি হয়তো।

আমাদের দেশে ইন্টারনেটের প্রসার মাত্র ঘটতে শুরু করেছে, এখনো সব পর্যায়ের মানুষের কাছে ইন্টারনেট সেবা পৌছাইনি। এইজন্য ব্লগিং কাকে বলে এটা জানা তো দূরের কথা অনেকেই ইন্টারনেটের ব্যাসিক জিনিসগুলো সম্পর্কেই এখনো ভালোভাবে জানেনা । আবার একদল মানুষ আছে যারা নিজেকে ইন্টারনেট এক্সপার্ট মনে করে অথচ তাঁরা ইন্টারনেট বলতে বোঝে শুধু ফেসবুক, ইউটিউব কে। ফেসবুক, ইউটিউবের বাইরেও যে কত বড় বড় সেক্টর পড়ে আছে তা অনেকেরই অজানা, তাঁর মধ্যে এই যেমন একটা ব্লগিং সেক্টর। তবে আমাদের দেশের মতো কিন্তু বাইরের উন্নত দেশগুলো এই অবস্থা না। ইউরোপের দেশগুলোতে ব্লগিং খুবই একটি জনপ্রিয় পেশা এবং প্রায় অধিকাংশ মানুষই ব্লগিং সম্পর্কে অবগত। একই সাথে একজন ব্লগারে লাইফস্টাইল এবং ইনকাম কেমন হতে পারে সেটাও সবার অজানা নয়, এই জন্যই ব্লগিং পেশাটিকে বাইরের দেশগুলোতে খবুই সম্মানের পেশা হিসেবে ধরা হয়।

ব্লগিং কি?

আজ থেকে ২৪ বছর আগে ১৯৯৪ সালে সর্বপ্রথম ব্লগিং এর যাত্রা শুরু হয়। ব্লগিং যখন সর্বপ্রথম শুরু হয়েছিলো মানুষজন তখন ব্লগিং কে পার্সোনাল ডাইরি হিসেবে নিয়েছিল। পার্সোনাল ডাইরি তে যেমন আমরা নিজের ইচ্ছে মত যা খুঁশি তাই লিখে রাখতে পারি, তেমনি ব্লগিং এর মাধ্যমেও লোকজন লেখালিখি করতো শুধু পার্থক্য এতটুকুই যে তাঁর সেই লেখা সবাই পড়তে পারবে। 

এরপর ব্লগিং এর মাধ্যমে শুরু হলো জার্নালিজম। জার্নালিজম যখন মোটামুটি ভালো পর্যায়ে চলে গেল মানুষজন অনলাইন জার্নালিজম কে সাদরে গ্রহণ করা শুরু করলো তখন থেকে ব্লগিং ইন্ডাস্ট্রি ক্রমাগত হাড়ে বৃদ্ধি পেতে থাকলো। সমস্ত বিষয় বস্তু ব্লগিং এর আওতায় আসা শুরু করলো, যার শুরু আজ থেকে ২৪ বছর আগে হয়েছে এখনো থামেনি প্রতিনিয়ত বৃদ্ধি পেয়েই চলেছে।

আমরা যদি সোজা বাংলায় বলতে যাই ব্লগিং কি তাহলে বলতে হয়: ব্লগিং এমন একটি জিনিস যার মাধ্যমে লেখালেখি করা যায় এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে পৃথিবীর সকল পর্যায়ের মানুষের কাছে সেই লেখা পৌঁছে দেয়া যায়। উদাহরণস্বরূপ: এই যে আপনি এই লেখাটি যে পড়ছেন, এটাই ব্লগিং এটাই একটা ব্লগ সাইট।

ব্লগিং ইন্ডাস্ট্রি কত বড় বা ব্লগিং এর ভবিষ্যত কেমন?

  • ২০২০ সাল শেষে ব্লগিং বা  কনটেন্ট মার্কেটিং ইন্ডাস্ট্রি ৪০০ বিলিয়ন ডলারে পোঁছাবে।
  • পুরো পূথিবীতে মোট ব্লগ সাইট আছে ৬০০ মিলিয়ন।
  • শুধু আমেরিকাতেই ৩২.৪ মিলিয়ন ব্লগ রয়েছে।
  • সারা পৃথিবীতে জুড়ে প্রতিদিন লক্ষাদিক এরও বেশি ব্লগ সাইট তৈরি হচ্ছে।
  • প্রতি মাসে ৮৫০ মিলিয়ন ব্লগ পোস্ট পাবলিশ হয়।
  • প্রতি বছর ১০ বিলিয়ন ব্লগ পোস্ট পাবলিশ হয়।
  • আমেরিকার জনসংখ্যার ১০% মানুষ তাঁদের ব্লগার বলে দাবি করে।
  • ব্লগিং ইন্ডাস্ট্রি প্রতিবছর ১৬% হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে।
  • ইন্টারনেট ব্যবহারকারির প্রতি ৪ জনের ৩ জনই প্রতিদিন ব্লগ পড়ে থাকে।

উপরের এই পয়েন্ট গুলো থেকে বুঝতেই পারছেন ব্লগিং ইন্ডাস্ট্রি  কোন পর্যায়ে পৌঁছে গেছে।

ব্লগার কারা

যারা ব্লগিং এর মাধ্যমে লেখালেখি করে অর্থাৎ লেখক তারাই ব্লগার। এই যেমন আমি আপনাদের জন্য এই লেখাটি লিখছি তো এখানে আমি একজন ব্লগার। ব্লগার বিভিন্ন ধরণের হতে পারে। কেউ খাবার নিয়ে লিখছে সে ফুড ব্লগার, আবার কেউ আইটি, টেক নিয়ে লেখালেখি করছে সে টেক ব্লগার একম অনেক ধরণের ব্লগার রয়েছে। 

এখানে একটা বিষয় উল্লেখ্যযোগ্য, অনেকেই মনে করেন ভ্লগ (Vlog) আর ব্লগ (Blog) একই জিনিস। কিন্তু এই দুটা একই জিনিস না। আমরা অধিকাংশ মানুষই ইউটিউবের কল্যাণে ভ্লগ (Vlog) জিনিসটার সাথে পরিচিত, সেই অর্থে ব্লগের সাথে পরিচিত না তাই আমরা যখন এই দুটার নাম শুনি তখন ভেবে বসি দুটা একই জিনিস। ভ্লগ (Vlog)  হলো ভিডিও যেই ভিডিওতে আমরা একজন ইউটিউবারের প্রতিদিনের কাজ-কর্ম, জীবন-জাপন দেখি । আর ব্লগ হলো আর্টিকেল যেটা আমরা পড়ি।

ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়?

ব্লগ কি, কারা ব্লগার সবই বুঝলাম এবার আসল কথায় আসো ব্লগিং করে কি আসলে কিছু করা যায়? নাকি এমনেই খেয়ে কাজ নাই মানুষজনের এসে লেখালেখি করে?আমাদের দেশের যে কোন কাজই করা হোক না কেন সর্ব প্রথম যেই প্রশ্ন: এটা করে মাসে কয় টাকাইনকাম করা যায়? এটা করে কি সংসার চলবে? এটার ভবিষ্যত কি? সরকারী চাকরীর থেকে কি এটা ভালো?

ব্লগিং করে কয় টাকা আয় করা যায়? এক কথায় উত্তর দেই:  বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে একজন এন্ট্রি লেভেল বা মিড লেভেল ব্লগার মাসে যে টাকা আয় করে একজন সরকারী চাকরীজীবি তা ৬ মাস বা ১ বছরেও ইনকাম করতে পারেনা। আমি একজন কে চিনি বাংলাদেশী যে এভারেজে মাসে ৩০-৩২ লক্ষ টাকা আয় করে।তবে এখানে কিছু কথা আছে, ব্লগিং শুরু করলেই যে সবাই আয় করতে পারবে বিষয় টা এমন না, এত সোজা না। আবার সবার ইনকামই যে সমান হবে তা নয়। ইনকাম নির্ভর করে অনেক বিষয়ের উপর। কোন ভাষায় ব্লগিং করা হচ্ছে, কোন দেশকে টার্গেট করে ব্লগ লেখা হচ্ছে, কোন বিষয়ের ওপর ব্লগ লেখা হচ্ছে ইত্যাদি এইরকম অনেক বিষয়ের ওপর ইনকাম নির্ভর করে।

তো পাঠক আপনাদের জন্য জন্য আজকের এই লেখা, ব্লগিং কি ? ব্লগার কারা ? ব্লগিং করে কত টাকা আয় করা যায়? আশা করি এই প্রশ্নগুলোর ভালো একটি উত্তর পেয়ে গেছেন। ব্লগিং নিয়ে আরো অনেক অজানা তথ্য পেতে আমাদের সঙ্গেই থাকুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top