সেরা ৫ টি ওয়েব ব্রাউজার

সেরা ৫ টি ওয়েব ব্রাউজার

ওয়েব ব্রাউজার (Web Browser) ইন্টারনেট ব্যবহারের ক্ষেত্রে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। ইন্টারনেট এর উপস্থিতিতে বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট (Website) এবং সোশ্যাল মিডিয়া সাইট (Social Media Site) ব্রাউজিং এর জন্য আমরা মূলত বিভিন্ন প্রকারের ওয়েব ব্রাউজার এর সহায়তা নিয়ে থাকি। 

বর্তমানে ইন্টারনেটে বিভিন্ন জায়গায় যেমন- গুগল প্লে স্টোর (Google Play store)  এবং অ্যাপ স্টোর (App store) -এ জালের মতো ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে অসংখ্য ওয়েব ব্রাউজার। এসব ব্রাউজারের প্রত্যেকের রয়েছে নিজস্ব কিছু ইউনিক বৈশিষ্ট্য। যে কারণে তারা প্রত্যেকেই মূলত নিজ নিজ জায়গা থেকে সেরা। তবে সার্বিক কার্যাবলি এবং গুণাবলী বিচার বিশ্লষণের মাধ্যমে কিছু ব্রাউজার বিশ্বের বিভিন্ন রাষ্ট্রের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের নিকট বিশেষ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। 

তাই আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে ইন্টারনেট ব্রাউজ করার জন্য সবথেকে সেরা এবং সর্বাধিক জনপ্রিয় ৫টি ওয়েব ব্রাউজার নিয়ে। এই ওয়েব ব্রাউজারগুলো মূলত তাদের হাই স্পিড ইন্টারনেট ব্রাউজিং সার্ভিস এবং হাই কোয়ালিটির privacy policy বজায় রাখার জন্য সব ধরনের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের নিকট সমানভাবে জনপ্রিয়। তবে এসব ইন্টারনেট ব্রাউজারগুলোর রয়েছে অনেক না জানা তথ্য ও বৈশিষ্ট্য। যেগুলোর কিছু কিছু হয়তো আমরা অনেকেই জানি আবার অনেকেই জানি না। তাই আজকে আমরা এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে জানতে চলেছি ইন্টারনেটে সবথেকে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ব্রাউজার কোনগুলো এবং তারা ঠিক কি কারণে জনপ্রিয়। 

ওয়েব ব্রাউজার কি? 

ওয়েব ব্রাউজার হলো এক ধরনের অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার যেটি মূলত যেকোন ওয়েবপেজ তথা ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব (World Wide Web-WWW) অথবা লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্কে থাকা যেকোন ভিডিও, ছবি, লেখা এবং অন্য যেকোন ধরনের তথ্য অনুসন্ধান, প্রদর্শন এবং ডাউনলোড করতে সহায়তা করে। অর্থাৎ যখন কোন ব্যবহারকারী নির্দিষ্ট কোন ওয়েবসাইটের নির্দিষ্ট কোন ওয়েব পেজ দেখার জন্য কোন ব্রাউজারকে রিকোয়েস্ট করে, তখন সেই ব্রাউজার ঐ নির্দিষ্ট ওয়েব পেজকে ওয়েব সার্ভার থেকে অনুসন্ধান করে বের করে এবং ডিসপ্লেতে প্রদর্শন করে। আর এই কাজটি একটি ব্রাউজার কয়েক সেকেন্ড এর মাঝেই করে নিতে পারে।

এমনকি একটি web browser হাইপারলিংক এর সাহায্যে একজন ইউজারকে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে অবস্থিত অসংখ্য ওয়েব পেজের মধ্যে দ্রুত এবং অনেক সহজে আন্তঃ যোগাযোগ স্থাপন এবং তথ্য আদান প্রদানে সহায়তা করে থাকে। এছাড়া এসমস্ত ব্রাউজারের মাধ্যমে বিভিন্ন ওয়েবসাইট ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের সোশ্যাল মিডিয়া সাইট যেমন- ফেসবুক, ইউটিউব, ইন্সাটাগ্রাম, ইমেইল, লিঙ্কডিন, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ প্রভৃতি সবজেই অনেক কম সময়ের মাঝে এক্সেস করা যায় এবং বিভিন্ন কন্টেন্ট ডাউনলোড করা যায়।

ওয়েব ব্রাউজার (Web Browser) এবং সার্চ ইঞ্জিন (Search Engine) এই দুটি বিষয়কে অনেকেই একইরকম বলে মনে করে থাকেন। যেটি একদমই ভুল একটি ধারণা। এই দুটি বিষয়ের মাঝে অনেক মিল থাকলেও প্রকৃতপক্ষে এরা সম্পূর্ণ আলাদা দুটি জিনিস। অতি সংক্ষেপে বলতে গেলে ব্রাউজারের কাজ হলো বিভিন্ন ওয়েব পেজ প্রদর্শন করা এবং সার্চ ইঞ্জিন এর কাজ হলো বিভিন্ন ওয়েবসাইটের লিংক প্রদর্শন করা। তবে এ বিষয়গুলো নিয়ে বিস্তারিত তথ্য পরবর্তী কোন আর্টিকেলে আলোচনা করা হবে। 

ওয়েব ব্রাউজারকে অনেক সময় ইন্টারনেট ব্রাউজার (Internet Browser) অথবা অনেক সময় অতি সংক্ষেপে শুধু ব্রাউজার -ও বলা হয়ে থাকে। তবে ব্রাউজার এর উৎপত্তি হয়েছে খুব বেশিদিন হয়নি। ধারণা করা হয় এধরনের ইন্টারনেট ব্রাউজারগুলোর উদ্ভব ও বিকাশ শুরু হয় ১৯৮০-র দশকে। এর পর থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত ক্রমাগত অজস্র নতুন নতুন ব্রাউজার এর উৎপত্তি এবং বিকাশ ঘটেছে।

জনপ্রিয় ৫টি ওয়েব ব্রাউজার 

ইন্টারনেটে থাকা অসংখ্য ওয়েব ব্রাউজারের মধ্য থেকে বাছাই করা সবথেকে সেরা ও জনপ্রিয় পাঁচটি ব্রাউজার নিয়ে এবার সাজানো হয়েছে আর্টিকেলের এই অংশটি। এখানে আমরা ৫ টি সেরা ইন্টারনেট ব্রাউজার এর নাম সহ বিস্তারিত সকল তথ্য নিয়ে আলোচনা করবো। যাতে করে এই ব্রাউজীরগুলো সম্পর্কে আপনারা প্রচলিত ধারণার বাহিরেও আরও অনেক কিছু জানতে পারেন। প্রথমেই চলুন এই জনপ্রিয় ইন্টারনেট ব্রাউজার গুলোর নাম জেনে নেই।

  1. গুগল ক্রোম (Google Chrome)
  2. মাইক্রোসফট এজ (Microsoft Edge) 
  3. মজিলা ফায়ার ফক্স (Mozilla Firefox)
  4. অপেরা (Opera)
  5. টর ব্রাউজার (Tor Browser)

এবার চলুন তাহলে জেনে নেই সেরা ৫ টি ব্রাউজারের বিস্তারিত।

গুগল ক্রোম (Google Chrome)

বর্তমানে বিশ্বে সর্বাধিক জনপ্রিয় এবং ব্যবহৃত ব্রাউজারটি হলো গুগল ক্রোম। উইকিপিডিয়ার তথ্যমতে ডেস্কটপে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে সর্বাধিক 72.9% মানুষ Google Chrome ব্যবহার করেন। যেখানে গুগল ক্রোম এর মূল জনপ্রিয়তা হলো অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের মধ্যে। 

Google Chrome বিশ্বের সর্ববৃহৎ সার্চ ইঞ্জিন কর্পোরেশন গুগল এর নিজস্ব একটি প্রোডাক্ট। যে কারণে এটি ব্যবহারে প্রাইভেসি যেমন শক্ত তেমনি সার্ভিসও অসাধারণ। গুগল ক্রোম ব্যবহার করে একজন ব্যবহারকারী ইন্টারনেটে থাকা সব ধরনের ওয়েবসাইট ভিজিট করতে পারেন এবং প্রয়োজনীয় যেকোন ধরনের কন্টেন্ট ডাউনলোড করতে পারেন। সর্বোপরি অ্যান্ড্রয়েড ইউজারদের জন্য Google Chrome একটি আদর্শ সফটওয়্যার।

মাইক্রোসফট এজ (Microsoft Edge)

মাইক্রোসফট এজ হলো মাইক্রোসফট কর্পোরেশন কর্তৃক উদ্ভাবিত একটি ফাস্ট এবং শক্তিশালী নিরাপত্তাব্যবস্থা সম্বলিত একটি ওয়েব ব্রাউজার। যেটি সর্বপ্রথম ২০১৫ সালে উইন্ডোজ ১০ এবং এক্সবক্স ওয়ান এর সঙ্গে একটি ডিফল্ট ব্রাউজার হিসেবে রিলিজ হয়। এরপর এর বিপুল জনপ্রিয়তাকে লক্ষ্য করে অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস অপারেটিং সিস্টেম এর জন্য ২০১৭ সালে এবং ম্যাক অপারেটিং সিস্টেম এর জন্য ২০১৯ সালে ব্রাউজারটি পুনরায় আত্মপ্রকাশ করে। 

ডেস্কটপ ব্যবহারকারীদের মধ্যে এটি দ্বিতীয় বৃহত্তম জনপ্রিয় একটি ওয়েব ব্রাউজার হলেও অ্যান্ড্রয়েড ইউজারদের মধ্যে এর জনপ্রিয়তা কিছুটা কম। সুতরাং আপনি যদি ডেস্কটপ ইউজার হন এবং বিশেষ করে উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম ইউজ করে থাকেন তবে অবশ্যই Microsoft Edge সফটওয়্যারটি একবার হলেও ব্যবহার করে দেখতে পারেন। 

মজিলা ফায়ার ফক্স (Mozilla Firefox)

সেরা পাঁচের এই লিস্টে তৃতীয় স্থানে অবস্থান করছে মজিলা ফায়ারফক্স নামের এই ওয়েব ব্রাউজারটি। Mozilla Firefox বর্তমান বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ ব্যবহৃত ইন্টারনেট ব্রাউজার। উইকিপিডিয়ার তথ্যমতে সাম্প্রতিক কালে যারা ডেস্কটপ ইউজার রয়েছেন তাদের মধ্যে প্রায় 5.5 শতাংশ ব্যবহারকারী মজিলা ফায়ার ফক্স ব্যবহার করে ইন্টারনেট ব্রাউজিং করে থাকেন। 

Firefox ব্রাউজার ব্যবহার করে ইন্টারনেটে প্রায় সকল কিছু ব্রাউজিং করা সম্ভব। এছাড়া এর শক্তিশালী নিরাপত্তা ব্যবস্থা এবং ইউজার ফ্রেন্ডলি সার্ভিসিং সেবা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। এমনকি আমি নিজেও এটি ব্যবহার করতে অনেক স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। 

অপেরা (Opera)

অপেরা ওয়েব ব্রাউজার হলো অপেরা সফটওয়্যার কোম্পানি কর্তৃক উন্নয়নশীল একটি মোবাইল ওয়েব ব্রাউজার যেটি সর্বপ্রথম ১৯৯৬ সালে জাভা ভিত্তিক মোবাইল ফোনগুলোতে ইন্টারনেট এক্সসেস এর জন্য বাজারে রিলিজ করা হয়। এরপর বিভিন্ন সময় অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস, ব্লাকবেরি, উইন্ডোজ মোবাইল ইত্যাদি অপারেটিং সিস্টেম -এর জন্য এই ব্রাউজারটির বিভিন্ন ভার্সন মুক্তি পায়। 

ইউজার ফ্রেন্ডলি ইন্টারফেস এবং শক্তিশালী প্রাইভেসি পলিসির জন্য গত কয়েক বছরে অপেরা মোবাইল ব্যবহারকারীদের মধ্যে অনেক বেশি জনপ্রিয়তা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট ব্রাউজিং ছাড়াও এই ব্রাউজারটির রয়েছে আরও অনেক আকর্ষণীয় ফিচার্স। 

যেমন- যেকোন ধরনের বিজ্ঞাপন ব্লক করা, ডেটা সাশ্রয়, এই সঙ্গে লো এবং হাই অপারেটিং সিস্টেম ভার্সন এর জন্য সফটওয়্যার availability, বিল্ড-ইন প্রক্সি ভিপিএন সুবিধা ইত্যাদি। জনপ্রিয় এই ওয়েব ব্রাউজারের ক্ষুদ্রতম ভার্সন অপেরা ইউএসবি ছাড়াও এর রয়েছে একটি গেমিং ভার্সন যার না অপেরা জিএক্স। এসব কারণে মোবাইল ও স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের মাঝে অপেরা ওয়েব ব্রাউজার এর জনপ্রিয়তা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি-ই পাচ্ছে।

টর (Tor)

টর ব্রাউজার একটি অন্যতম জনপ্রিয় ওয়েব ব্রাউজার হলেও এর জনপ্রিয়তার কারণ উপরোক্ত ব্রাউজারগুলোর তুলনায় একদমই আলাদা। এই ব্রাউজারটির রয়েছে বিশেষ এবং নিজস্ব কিছু বৈশিষ্ট্য যেটি অন্যান্য সকল ব্রাউজার থেকে এই ব্রাউজারটি-কে একদম ইউনিক করে তুলেছে। তবে টর ব্রাউজার কি এবং কিভাবে কাজ করে এই সম্পর্কে বিস্তারিত আমাদের এই আর্টিক্যাল থেকে জেনে নিতে পারেন।

Tor browser ব্যবহার করে একজন ব্যবহারকারী তার সম্পূর্ণ পরিচয় গোপন রেখে ইন্টারনেট ব্রাউজিং করতে পারেন। অর্থাৎ যেকোন প্রকারের ট্র্যাকিং এবং সেন্সরশিপ থেকে একজন ইউজার সহজেই নিজেকে লুকিয়ে রাখতে পারেন। ফলে অন্যান্য ব্রাউজারের মাধ্যমে যা কিছু ইন্টারনেটে এক্সেস করা সম্ভব হয় না সেসব কিছু এই ব্রাউজারের মাধ্যমে করা সম্ভব। যে কারণে ইন্টারনেটের বেশিরভাগ অশ্লীল এবং নিষিদ্ধ কাজগুলো এই সফটওয়্যারটির মাধ্যমে করা হয়ে থাকে। এছাড়া সহজে পরিচয় গোপন রাখা যায় বলে এটি হ্যাকারদের নিকট খুবই জনপ্রিয় এবং বহুল ব্যবহৃত একটি ইন্টারনেট ব্রাউজার।

সেরা ৫টি ওয়েব ব্রাউজার নিয়ে সাজানো এই আর্টিকেলের প্রায় শেষ প্রান্তে চলে এসেছি আমরা। আশা করি এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টার কল্যাণে সেরা ইন্টারনেট ব্রাউজারগুলো সম্পর্কে আপনারা সঠিকভাবে বুঝতে পেরেছেন। কেননা আমরা এই আর্টিক্যালের মাধ্যমে আমরা চেষ্টা করেছি সকল প্রয়োজনীয়, গুরুত্বপূর্ণ এবং আপডেট তথ্যগুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরার। তবুও আপনাদের যদি আরও কোন কিছু জিজ্ঞাসার থাকে তবে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে লিখে জানানোর অনুরোধ রইলো। 

প্রযুক্তির নতুন নতুন কিছু বিস্ময়কর আবিষ্কার ও ক্রমাগত নতুন নতুন প্রয়োজনের ও চিন্তার উপর ভিত্তি করে আপডেট এবং নতুন নতুন ফিচার আমাদের সামনে আসছে। তাই নতুন নতুন আপডেট এই খবর ও আর্টিক্যালগুলো পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published.